ঢাকা ১২:৫৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪
ব্রেকিং নিউজ
Logo বাংলাদেশ সরকারের ২০২৪-২৫ অর্থ বছরের বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে ইউকে ওয়েলস আওয়ামী লীগের সভা অনুষ্ঠিত Logo মৌলভীবাজারে জাল টাকাসহ আটক-২ Logo ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস উপলক্ষে ওয়েলস আওয়ামী যুবলীগের সভা অনুষ্ঠিত Logo মৌলভীবাজার জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার হলেন ওসি বিনয় ভূষণ রায় Logo শ্রীমঙ্গলে যক্ষ্মা রোগ নিয়ন্ত্রণে ইমামদের নিয়ে নাটাবের আলোচনা সভা Logo ছাগল মোটাতাজা করার কৌশল: চিকিৎসা ও যত্নের সম্পূর্ণ গাইড Logo গাভি পালন ও দুধ উৎপাদন: লাভজনক কৌশল ও যত্নের টিপস Logo গরু পালন করে লাভবান হওয়ার কৌশল Logo শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভানু লাল রায় বেসরকারি ভাবে চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত Logo মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে চার সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি

মৌলভীবাজারে সকল নাগরিকদের সাথে মিলেমিশে কাজ করতে চায় জেলা পুলিশ

মৌলভীবাজার জেলার সকল নাগরিকদের সাথে মিলেমিশে কাজ করতে চায় জেলা পুলিশ। আর জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমেই জেলার সকলের সাথে কাজ করা সম্ভব বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মো. মনজুর রহমান পিপিএম (বার)।

মঙ্গলবার (২৯ আগস্ট) সকালে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ আয়োজিত জনপ্রতিনিধিদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় পুলিশ সুপার মহোদয় এসব কথা বলেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) জনাব সুদর্শন কুমার রায়ের সঞ্চালনায় উক্ত মতবিনিময় সভায় মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন উপেজেলার চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মতবিনিময় সভায় মৌলভীবাজার জেলার জনপ্রতিনিধিগণ তাদের বক্তব্যে স্ব-স্ব এলাকায় যানজট, মাদক, ইভটিজিং, পারিবারিক সহিংসতাসহ আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ে তাদের বিভিন্ন মতামত তুলে ধরেন।

পুলিশ সুপার বলেন, “আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশের পক্ষ থেকে আমরা কমিউনিটি পুলিশিং, বিট পুলিশিংসহ নানাবিধ কাজ করছি। পুলিশি সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌছে দিতে বিট পুলিশিং এর মাধ্যমে আমরা আমাদের অফিসারদের আপনাদের কাছে পাঠিয়েছি। সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় আমাদের বিট অফিসার, কমিউনিটি পুলিশিং, গ্রাম পুলিশ, নাইটগার্ডসহ সকলে মিলে একসাথে কাজ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে থানার অফিসার ইনচার্জ এবং জনপ্রতিনিধিদের মধ্যে সমন্বয় করে কাজ করলে সুফল পাওয়া যাবে।”

সম্প্রতি কুলাউড়া উপজেলায় জঙ্গি আস্তানা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ”জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধে আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে। কোন এলাকায় নতুন কোন লোক আসলে তার পরিচয় এবং কাজকর্ম সম্পর্কে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ সবাইকে নজর রাখতে হবে। কুলাউড়ার ঘটনায় আমরা একটু সচেতন হলে আরো আগেই তাদের নির্মূল করা সম্ভব হত।”

মো. মনজুর রহমান বলেন, ”ইভটিজিং, আত্মহত্যা, পারিবারিক সহিংসতা ইত্যাদি ক্ষেত্রে আমাদেরকে সামাজিকভাবে সচেতনতা তৈরি করতে হবে। সমাজে কোন ঘটনা ঘটলে সেটার বিরুদ্ধে প্রাথমিক স্টেজেই কাজ করতে হবে, যাতে সমস্যাটা বড় না হয়ে যায়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোন ছবি, মেসেজ দেখলে যাচাই-বাছাই করে বিশ্বাস করতে হবে। গুজব ছড়ানো রোধে স্থানীয়ভাবে এসবের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালাতে হবে।”

মাদক এবং কিশোর গ্যাং সম্পর্কে তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে কিশোর গ্যাং আর মাদক অনেক বড় সামাজিক সমস্যা। বাইরের কেউ না, আমাদের সমাজের আমাদের ছেলেরাই কিশোর গ্যাং এবং মাদকের সাথে জড়িয়ে পড়ছে। এসব সমস্যা একমাত্র সামাজিকভাবেই প্রতিরোধ করা সম্ভব। চুরি, ডাকাতিসহ বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা নিয়ে আমরা যদি একসাথে মিলেমিশে কাজ করতে পারি তাহলে মৌলভীবাজার থেকে এসব সমস্যা দূর করা সম্ভব।

মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ আয়োজিত এই মতবিনিময় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহসিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. আজমল হোসেন, জেলা বিশেষ শাখার ডিআইও-১ আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী এবং মৌলভীবাজার জেলার সকল থানার অফিসার ইনচার্জগণ।

বাংলাদেশ সরকারের ২০২৪-২৫ অর্থ বছরের বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে ইউকে ওয়েলস আওয়ামী লীগের সভা অনুষ্ঠিত

মৌলভীবাজারে সকল নাগরিকদের সাথে মিলেমিশে কাজ করতে চায় জেলা পুলিশ

আপডেট সময় ০৫:৩৬:৫২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩০ অগাস্ট ২০২৩

মৌলভীবাজার জেলার সকল নাগরিকদের সাথে মিলেমিশে কাজ করতে চায় জেলা পুলিশ। আর জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমেই জেলার সকলের সাথে কাজ করা সম্ভব বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মো. মনজুর রহমান পিপিএম (বার)।

মঙ্গলবার (২৯ আগস্ট) সকালে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ আয়োজিত জনপ্রতিনিধিদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় পুলিশ সুপার মহোদয় এসব কথা বলেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) জনাব সুদর্শন কুমার রায়ের সঞ্চালনায় উক্ত মতবিনিময় সভায় মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন উপেজেলার চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মতবিনিময় সভায় মৌলভীবাজার জেলার জনপ্রতিনিধিগণ তাদের বক্তব্যে স্ব-স্ব এলাকায় যানজট, মাদক, ইভটিজিং, পারিবারিক সহিংসতাসহ আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ে তাদের বিভিন্ন মতামত তুলে ধরেন।

পুলিশ সুপার বলেন, “আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশের পক্ষ থেকে আমরা কমিউনিটি পুলিশিং, বিট পুলিশিংসহ নানাবিধ কাজ করছি। পুলিশি সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌছে দিতে বিট পুলিশিং এর মাধ্যমে আমরা আমাদের অফিসারদের আপনাদের কাছে পাঠিয়েছি। সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় আমাদের বিট অফিসার, কমিউনিটি পুলিশিং, গ্রাম পুলিশ, নাইটগার্ডসহ সকলে মিলে একসাথে কাজ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে থানার অফিসার ইনচার্জ এবং জনপ্রতিনিধিদের মধ্যে সমন্বয় করে কাজ করলে সুফল পাওয়া যাবে।”

সম্প্রতি কুলাউড়া উপজেলায় জঙ্গি আস্তানা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ”জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধে আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে। কোন এলাকায় নতুন কোন লোক আসলে তার পরিচয় এবং কাজকর্ম সম্পর্কে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ সবাইকে নজর রাখতে হবে। কুলাউড়ার ঘটনায় আমরা একটু সচেতন হলে আরো আগেই তাদের নির্মূল করা সম্ভব হত।”

মো. মনজুর রহমান বলেন, ”ইভটিজিং, আত্মহত্যা, পারিবারিক সহিংসতা ইত্যাদি ক্ষেত্রে আমাদেরকে সামাজিকভাবে সচেতনতা তৈরি করতে হবে। সমাজে কোন ঘটনা ঘটলে সেটার বিরুদ্ধে প্রাথমিক স্টেজেই কাজ করতে হবে, যাতে সমস্যাটা বড় না হয়ে যায়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোন ছবি, মেসেজ দেখলে যাচাই-বাছাই করে বিশ্বাস করতে হবে। গুজব ছড়ানো রোধে স্থানীয়ভাবে এসবের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালাতে হবে।”

মাদক এবং কিশোর গ্যাং সম্পর্কে তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে কিশোর গ্যাং আর মাদক অনেক বড় সামাজিক সমস্যা। বাইরের কেউ না, আমাদের সমাজের আমাদের ছেলেরাই কিশোর গ্যাং এবং মাদকের সাথে জড়িয়ে পড়ছে। এসব সমস্যা একমাত্র সামাজিকভাবেই প্রতিরোধ করা সম্ভব। চুরি, ডাকাতিসহ বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা নিয়ে আমরা যদি একসাথে মিলেমিশে কাজ করতে পারি তাহলে মৌলভীবাজার থেকে এসব সমস্যা দূর করা সম্ভব।

মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ আয়োজিত এই মতবিনিময় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহসিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. আজমল হোসেন, জেলা বিশেষ শাখার ডিআইও-১ আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী এবং মৌলভীবাজার জেলার সকল থানার অফিসার ইনচার্জগণ।